বৃহস্পতিবার, মে ২৩, ২০২৪
৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আপনি জানেন কি? পর্ব – ২

রনিকা বসু (মাধুরী)
স্টাফ রিপোর্টার:

 

লেখক ঃ ইঞ্জিঃ মোঃ সিরাজুল ইসলাম। 

তারিখ ঃ ০৫.০৫.২০২৪

 

হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম-সচিব মাওলানা মামুনুল হক 

১ হাজার ১ শত ১০ দিন জেলে কাটিয়ে বের হয়েছেন গেলো শুক্রবার হাজার হাজার ধর্মীয় লেবাসধারী ভক্তদের উজ্জীবিত করে! আলহামদুলিল্লাহ আমরা সবাই খুশি। উল্লেখ্য তিনি ২০২১ সালে ৩ রা এপ্রিল সোনারগাঁও রয়েল রিসোর্টে নারী সহ গ্রেফতার হন! তার মাত্র ৩ দিন আগে তার আদেশে ১২/১৭ জন হেফাজতের কিশোর হাসতে হাসতে বায়তুল মুকাররম মসজিদ প্রাঙ্গণে পুলিশের বুলেটে জীবন দিয়ে বেহেশতে বাসী হয়েছেন, তাদের কবরের মাটি শুকাবার আগে তিনি “মদ মহিলা রিসোর্ট” মহিলা সহ অবকাশ যাপনে গ্রেফতার হন। তিনি যেহেতু “ইসলামের হেফাজত করেন” তার অনেক ভক্ত এবং তারা দলে দলে এসে ভাঙচুর অগ্নিসংযোগ করে মামুন সাহেবকে ছিনিয়ে নেয়। তিনি মদমত্ত হস্তীর মত শক্তি প্রদর্শন করে সরকার কে বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করতঃ তার বাবা ভাই ভগ্নিপতিদের দখলকৃত মাদ্রাসা মোহাম্মদপুরের জমিয়া রহমানিয়া আরাবিয়া মাদ্রাসায় অবস্হান নেন( সরকার সটা সিস করেছে অবৈধ দখলদারি থেকে) যেমন তার ওস্তাদ হেফাজতের সভাপতি (মাওলানা শফি হত্যার পর) মাওলানা বাবু নগরী হাটহাজারী মাদ্রাসায় অবস্হান নিয়েছিলেন! কিন্তু বাবু নগরী মনোবল টুটে যায় যখন শফি সাহেব হত্যা মামলায় হুকুমের আসামি হন এবং সরকার কোভিড কারনে সব কোমল মতি কিশোর ছাত্রদের হাটহাজারী হোস্টেল ছাড়তে বলেন!  

বাবু নগরী ছাত্রদের বালামুসিবত দূর করতে হোস্টেলে ফিরতে সরকারকে অনুরোধ করেন। উল্লেখ্য তখন এবাদত ফেলে “পবিত্র কাবার মসজিদুল হারামে জামাত” ও পবিত্র কাবা তওয়াব, উমরাহ বন্ধ করে দিয়েছেন সৌদি সরকার, “ভ্যাটিকানের পোপ” এবাদত ছেড়ে হাজার হাজার ভক্ত আগমন বন্ধ করে নিজ বাসায় অবস্থান নিয়েছেন, গয়া কাশি বৃন্দাবন পবিত্র স্হান ভারত সরকার ভিজিট বন্ধ করেছেন, ঠিক তখন “বাবু নগরী” হোস্টেল খুলে দিতে চাপ দিতে থাকেন এবং সরকার তার ছাত্র হাতিয়ার হাতে না দিয়ে অটল থাকেন, তিনি বিমর্ষ হয়ে পড়েন এবং গ্রেফতার হয়ে জিজ্ঞাসা বাদের ভয়ে থলের বিড়াল বের হয় ভেবে ডিপ্রেশনে হার্ট ফেইল করে মৃত্যু বরন করেন!  

 

প্রিয় পাঠক, বলতেছিলাম মাওলানা মামুনের কথা, মোহাম্মদ পুর মাদ্রাসা থেকে ১৫ দিন পর ১৮ ই এপ্রিল মামুন গ্রেফতার হন! মামলা, ধর্ষণ সহ বিভিন্ন নারী কেলেংকারী ——-

 

আমি মাঝে মাঝে বলে থাকি নিউটনের থার্ড ল, To every action there is an equal and opposite reaction! এমন কথা কুরআনে ও আছে। পাপ বাপকে ছাড়ে না। ঐ সময় রাজনৈতিক অস্হিরতায় সরকার হিমশিম খাচ্ছিলো, বিএনপি জামাত হেফাজত শাপলাচত্বর দখল, বায়তুল মুকাররম আগুন, সরকার নিরুপায় কারন ধর্মের ধ্বজাধারীদের গায় হাত দেয়া কঠিন! সরকার কম্প্রোমাইজ করে এই সো কল্ড শিক্ষা কে আলিয়া মাদ্রাসা, সাধারণ শিক্ষা সমান মাস্টার্স মর্যাদা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা “কওমি মাদার” খেতাব নিলেন (মনে করার চেষ্টা করেন)! তবু ও মামুন ফিরেন না, সরকার পতন তার একমাত্র লক্ষ্য এবং তিনি তখন বরাবরি মসজিদ নির্মাণে কেরানি গঞ্জে কয়েক হাজার ইট ভাঙা দেখায় এবং জলা ২/১ বিঘা জমি কিনে মধ্য প্রাচ্য থেকে হাজার কোটি হাতরায় ফেলেছেন। তখন তাদের পিএস পর্যন্ত হেলিকপ্টারে বৌভাত করে!  

 

প্রিয় পাঠক, সরকার কে আল্লাহ রক্ষা করলেন! মামুন নবী করীম সঃ কিভাবে ঠোঁট নেড়ে কথা বলতেন তাও সভায় দেখানো শুরু করলেন (তথ্য ঃ ইউটিউব।) মনে হতো মামুন সাহেন নবী করীম সঃ এর সাথে ছিলেন। 

তারপর আল্লাহর সেই To every action —

মামুন মহিলা নিয়ে মদের রিসোর্টে এবং —-

মামুন সাহেব বের হয়ে যত লোক তাকে অভ্যার্থ না জানিয়েছেন, মাশাল্লাহ ইসলামের হেফাজত এরাই করতে পারবেন, যে রিসোর্টে তিনি মহিলা সহ গেছেন, যে ধর্ষন মামলা ও মহিলাদের অভিযোগে তিনি অভিযুক্ত তাকে আলেম ওলামা মশায়েখ স্বন্বর্ধনা দেখে “মুসলমান আছে ইসলাম নাই” ই মনে হয়! 

 

তিনি বের হয়ে বলেছেন হুঙ্কারের সাথে, “আল্লাহর এ জমিনে ইসলামের ঝান্ডা উঁচু রাখতে জান দিতে —- প্রস্তুত আছি ইত্যাদি —

আসলে তাকে তো বলার কথা,” নারী ভোগ করতে সোনারগাঁও রয়েল রিসোর্টে, দৌলতদিয়া বেশ্যা পাড়া, টাঙাইল শহরে কান্দাপাড়া, কলকাতা এশিয়ার বৃহত্তর পতিতা পল্লী “সোনা গাছি” যাবো ইনশাআল্লাহ তাতে যায় যাবে জান, রক্ষা করবো নারী ভোগের মান!” 

মামুন সাহেব থিউরি ঠিক আছে, পৃথিবীতে যদি ভোগবাদী না হয়ে প্রশিক্ষণ না নিয়ে ওপারে চলে যান তা হলে ৭০ হুর সামলাবেন কিভাবে? আমাদের হিসাব নিকাশ আল্লাহ নিলেও যারা ইসলামের হেফাজত কারী তাদের জন্য তো বেহেশতে আলাদা ঘর দোর তৈরি হয়ে আছে যেমন টা তারা ভাবেন নিশ্চিত! তাইতো ব্যাঙ্কের আগে ইসলাম, ইন্সুইরেন্স এর আগে ইসলাম, রাজনৈতিক দলের নামে ইসলাম, আর অশিক্ষিত ধর্মপ্রাণ মানুষ ইসলাম শুনলেই ঝাপিয়ে পড়েন কিন্তু মামুন বাবু নগরী সহ কয়েক শত লেবাসির সম্পদ ও কার্যকলাপ জনসম্মুখে আসায় পরিস্কার তাদের ইসলামের হেফাজত! 

 

ভালো থাকেন সুস্থ থাকেন নিজ দেশকে ভালোবাসেন। 

নিজ সারাজীবনের কর্ম বিশ্লেষণে বেহেশতে দোজখ, আল্লাহ নিজে বিচারক! এই কথাটা কেউ ভুলে যাবেন না! সৎ আয়, তাকওয়াপূর্ণ জীবন মোত্তাকি হয়ে মরণের চেষ্টা করেন, আল্লাহ বিশ্বে ৪৩০০ ধর্ম পালনের কাউকে অক্সিজেন বন্ধ করেন নাই মুসলমান না বিধায়, অভুক্ত রাখেন নাই। এমন কি ইসা আঃ ও মূসা আঃ এর অনুসারীদের বিষয় ও আল কুরআনে ঈঙ্গিত আছে। 

 

মাওলানা মামুন সাহেবের অভ্যার্থনা বহর এবং রিসোর্টে মামুন সাহেব।

থেকে আরও পড়ুন

কুড়িগ্রামে রেলের ভাড়া বৃদ্ধির প্রতিবাদে  মানববন্ধন মোবাশ্বের নেছারী কুড়িগ্রাম: কুড়িগ্রামে রেলের ভাড়া বৃদ্ধির প্রতিবাদে মানববন্ধন...

কুড়িগ্রাম জেলার গাও-গ্রামের নারীদের হাতের তৈরি টুপি মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে বেশ সুনাম অর্জন করেছে।...

কুড়িগ্রামে ১০টি আশ্রয়ন প্রকল্পের লোকজন রয়েছেন আশ্রয়হীন হওয়ার শঙ্কায়মোবাশ্বের নেছারী কুড়িগ্রাম: কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলার...

এই সময়ে চোখ উঠা রোগ একটি স্বাভাবিক ব্যাপার যা অনেকেরই হচ্ছে। এটি নিয়ে ভয়...