শনিবার, এপ্রিল ১৩, ২০২৪
৩০শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বরগুনার ১নং ইউনিয়নের ভাঙ্গা সড়কের বেহাল দশা চলাচলের ভোগান্তিতে জনগণ

গোলাম রাব্বি (বরগুনা)
বরগুনা ১ নং বদরখালী সড়কের বেহাল দশায়,  জনজীবন পার করছে এলাকার হাজার হাজার  মানুষ। ডিজিটাল ও স্মার্ট এর ছোঁয়া লাগেনি এখনও ভাঙ্গা রাস্তায় গুলোতে। জনপ্রতিনিধিরা প্রতিশ্রুতি দিলেও কথা রাখেনি। স্থানীয়রা জানান, শুধু ভোট আসলেই নেতাকর্মীদের আনাগোনা বৃদ্ধি পায় এবং ভোট নেয়ার জন্য নানা প্রতিশ্রুতি দেয় নির্বাচিত নেতা কর্মীরাড়। পরবর্তী ভোট না আসা পর্যন্ত তাদের দেখাও মেলে না এভাবেই চলে গেছে বিগত বছর গুলো, তবুও রাস্তা মেরামত বা পাকা হয়নি। এ এলাকার শিশু, বৃদ্ধ নারী -পুরুষ স্কুল – কলেজের ছাত্র ছাত্রী, চাকুরীজীবী ও ব্যবসায়ী সহ সকল শ্রেণীর মানুষ বর্ষা মৌসুমে পড়েন চরম ভোগান্তিতে। আবার  বর্ষা মৌসুমে রাস্তার মাঝে বিশাল গর্তে পানি আটকে যায় কষ্টে  দৈনন্দিন জীবন পার করছে এলাকার হাজার হাজার মানুষ। বরগুনা ১ নং বদরখালী ইউনিয়ন ফুলতলা আবাসনের সিদ্দিক বলেন, কি আর বলবো আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় উন্নয়ন তো হচ্ছে তবুও এ এলাকার মানুষের দুর্ভোগ শেষ হয় না। ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটে নাই।নির্বাচনের সময় সকল জনপ্রতিনিধিরা নতুন সড়ক নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিলেও আজও কেউ কথা রাখেনি। যোগাযোগের পথ না থাকায় এলাকার উৎপাদিত কাঁচামাল ও খাদ্য সঠিক সময়ে ন্যায্য মূল্য বিক্রি করা সম্ভব হয় না। আরো বলেন,রাস্তার বেহাল দশা, একজন  গর্ভবতী মা এবং অসুস্থ ব্যক্তিকে চিকিৎসা করাতে হাসপাতালে নিতে গেলে রাস্তার দুর্দশার জন্য পড়তে হয় ভোগান্তিতে পৌঁছানো যায় না সঠিক সময় হাসপাতালে। গৌরীচননা থেকে বদরখালী পর্যন্ত এই পথ এলাকার সাধারণ মানুষের চলাচলের ক্ষেত্রে রাস্তায় চরম ভোগান্তি। এছাড়াও এই এলাকার মানুষের একটি মাত্র চলাচলের পথ। স্থানীয় ইস্কু শিক্ষার্থীরা বলেন,বর্ষা এলে কাঁচা রাস্তায় পানি, কাদা -জমে গর্ত সৃষ্টি হয়। আমরা চরম অবহেলিত এলাকায় বসবাস করি। রাস্তায় ইট ভাটার ট্রাক, চলাচল করে ধুলাবালি উড়তেছে। ডিজিটাল স্মার্ট বাংলাদেশের প্রচার থাকলেও বাস্তবে ভিন্ন চিত্র এই এলাকার। এত বড় ভাঙ্গা রাস্তা দীর্ঘ কয়েক বছর যাবত রাস্তা পাকা করনের পদক্ষেপ নেইনি কেউ শুধুই প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে। রাস্তাটি পাকা হলে স্থানীয় শ্রমিক ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের চলাচলের সুবিধা এবং জীবন মানের উন্নতি ঘটতো। ভাঙ্গা রাস্তা দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে ভয় পাচ্ছে স্কুল -কলেজ ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা। রিক্সা চালক বলেন,  যোগাযোগ ব্যবস্থা ভালো না তাই এলাকার উন্নয়ন হয়নি। এই এলাকার যোগাযোগ ব্যবস্থা সচল রাখার দাবি জানান এলাকাবাসি। এ ব্যাপারে ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জানান,
চেষ্টা চলছে রাস্তাগুলো খুব দ্রুত সংস্কার করা হবে।

থেকে আরও পড়ুন

সদাকাতুল ফিতর এর মূল্য নির্ধারণ সর্বনিম্ন ১১৫ টাকা। চলতি রমজান মাসের  ফিতরার হার নির্ধারণ...

কুড়িগ্রামে বরাদ্দ না পেয়ে স্থানীয়রা সেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে নিজেরাই সড়ক নির্মাণ করছেন। কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার বল্লভেরখাস...

কুড়িগ্রাম জেলার গাও-গ্রামের নারীদের হাতের তৈরি টুপি মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে বেশ সুনাম অর্জন করেছে।...

বাগেরহাটের ফকিরহাটসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় চাকুরী দেওয়ার কথা বলে টাকা নিয়ে আত্মসাৎ ও প্রতারণার...