শনিবার, এপ্রিল ১৩, ২০২৪
৩০শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ভাষার মাসের প্রথম দিন সুপ্রিম কোর্টে বাংলায় রায় ও আদেশ

ভাষার মাস ফেব্রুয়ারির প্রথম দিন আজ বুধবার সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি ও হাইকোর্ট বিভাগের তিনটি দ্বৈত বেঞ্চ বাংলা ভাষায় রায় ও আদেশ দিয়েছেন। একই দিন ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টের ওয়েবসাইটের ‘বাংলা সংস্করণ’ উদ্বোধন করেছেন প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী।

আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম আজ প্রায় দেড় শ মামলায় বাংলায় আদেশ ও সিদ্ধান্ত দেন। তিনি বলেছেন, এখন থেকে বাংলা ভাষায় আদেশ দেওয়া হবে।

আপিল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগ ইতিপূর্বে বাংলা ভাষায় রায় ও আদেশ দিয়েছেন। তবে আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতির বাংলায় আদেশ প্রদান দেশের বিচার বিভাগের ইতিহাসে প্রথম।

এদিকে আজ দিনের প্রথমার্ধে বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এক মামলায় বাংলায় রায় দেন। ‘মো. আক্কাস আলী বনাম বাংলাদেশ’ শিরোনামে অর্পিত সম্পত্তিসংক্রান্ত রিটের চূড়ান্ত শুনানি শেষে রায় দেওয়া হয়।

রায় ঘোষণার আগে বিচারপতি নাইমা হায়দার বলেন, ‘আজ ভাষার মাস শুরু হচ্ছে। ভাষাশহীদের আত্মার প্রতি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের প্রতি সম্মান জানিয়ে আজ প্রথম রায়টি বাংলায় ঘোষণা করছি।’

১৩ বছরের বিচারিক জীবনে প্রথম বাংলা ভাষায় রায় দিলাম। বাংলায় এই রায় দিতে পেরে গর্ববোধ হচ্ছে। ভাষার মাসে বাংলা ভাষায় আরও রায় দেব।

অন্যদিকে মধ্যাহ্নবিরতির পর বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি খিজির হায়াতের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ উল্লেখ করেন, ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে একটি মামলায় বাংলায় রায় ঘোষণা করবেন। এরপর একটি ফৌজদারি রিভিশন মামলায় রায় ঘোষণা করেন এই দ্বৈত বেঞ্চ।

বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার বলেন, ‘১৩ বছরের বিচারিক জীবনে প্রথম বাংলা ভাষায় রায় দিলাম। বাংলায় এই রায় দিতে পেরে গর্ববোধ হচ্ছে। ভাষার মাসে বাংলা ভাষায় আরও রায় দেব।’

এর আগে সকালে বাংলায় আদেশ দেন বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমান ও বিচারপতি এ কে এম রবিউল হাসানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ।

এদিকে ২০১০ সালের এপ্রিলে হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ পাওয়া বিচারপতি শেখ মো. জাকির হোসেন যোগদানের পর নিয়মিত বাংলায় রায় ও আদেশ দিয়ে যাচ্ছেন। আর সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে মামলায় ২০১৬ সালের ৫ মে হাইকোর্টের তিন বিচারপতি রায় দেন। তিন বিচারপতির মধ্যে হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি মো. আশরাফুল কামাল বাংলায় রায় লেখেন। এরপর থেকে তিনি নিয়মিত বাংলায় রায় ও আদেশ দিচ্ছেন।

সুপ্রিম কোর্টের ওয়েবসাইটের ‘বাংলা সংস্করণ’

ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে আজ সুপ্রিম কোর্টের ওয়েবসাইটের ‘বাংলা সংস্করণ’ উদ্বোধন করেছেন প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী। বেলা সোয়া ১১টার দিকে এটি উদ্বোধন করা হয়। ফলে এখন থেকে ব্যবহারকারীরা তাঁদের সুবিধা অনুযায়ী বাংলা ও ইংরেজি সংস্করণে সাইটটি দেখতে পারবেন।

এ সময় সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. গোলাম রব্বানী, আপিল বিভাগের রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ সাইফুর রহমানসহ সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসনের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন জানায়, এ ওয়েবসাইট তথ্যবহুল, জনমুখী ও জনবান্ধব এক পোর্টাল। দেশের আপামর জনসাধারণ, বিচারপ্রার্থী, আইনজীবী, আইনের শিক্ষার্থী, গবেষকসহ দেশ ও দেশের বাইরের যেকোনো ব্যক্তি এ ওয়েবসাইট থেকে সুপ্রিম কোর্টের মামলাসংক্রান্ত ও অন্যান্য তথ্য পেতে পারেন।

এত দিন বাংলা সংস্করণ না থাকায় ওয়েবসাইট থেকে অনেকেরই তথ্য সংগ্রহ করতে বেগ পেতে হতো। এ অবস্থা থেকে উত্তরণের লক্ষ্যে ভাষার মাসের শুরুতে ভাষা আন্দোলনের শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ওয়েবসাইটের বাংলা সংস্করণের উদ্বোধন করা হয়।

থেকে আরও পড়ুন

সদাকাতুল ফিতর এর মূল্য নির্ধারণ সর্বনিম্ন ১১৫ টাকা। চলতি রমজান মাসের  ফিতরার হার নির্ধারণ...

কুড়িগ্রামে বরাদ্দ না পেয়ে স্থানীয়রা সেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে নিজেরাই সড়ক নির্মাণ করছেন। কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার বল্লভেরখাস...

কুড়িগ্রাম জেলার গাও-গ্রামের নারীদের হাতের তৈরি টুপি মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে বেশ সুনাম অর্জন করেছে।...

বাগেরহাটের ফকিরহাটসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় চাকুরী দেওয়ার কথা বলে টাকা নিয়ে আত্মসাৎ ও প্রতারণার...